মৌলভীবাজারে গবাদিপশুর হাটে ক্রেতাদের ভীড়

মোঃ তাজুদুর রহমান,মৌলভীবাজার।।  মৌলভীবাজারে শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির গবাদি পশুর হাট গুলো। ঈদকে সামনে রেখে সপ্তাহের প্রথম দিকে হাটগুলো বসলেও শুরুতে ক্রেতার উপস্থিতি কম থাকলেও শনিবার থেকে হাটগুলো ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতিতে জমতে শুরু করে।
 মৌলভীবাজার পৌরসভা কর্তৃক গবাদি পশুর সবচেয়ে বড় হাট বসেছে শহরের এম সাইফুর রহমান স্টেডিয়ামের সামনের মাঠে। সেখানে শুরুতে ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতি কম থাকলেও শনিবার রাতে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় হাটগুলোতে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভীড়, বেড়েছে গবাদি পশুর সংখ্যাও।
কোরবানি ঈদে এবার হাটগুলোতে গবাদি পশুর দাম অনেকটা স্থিতিশীল রয়েছে বলে শহরের সাইফুর রহমান স্টেডিয়ামে অবস্থিত পৌরসভার হাট ইজারাদার সূত্রে জানা যায়। মৌলভীবাজার পৌরসভা কর্তৃক এই হাটে ছোট বড় কয়েকহাজার গরু-মহিষের পাশাপাশি মাঠের দক্ষিণ দিকে কয়েক হাজার ছাগল,ভেড়া ও খাসি নিয়ে বসেছেন বেপারিরা। সেখানেও ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতি বেশি দেখা যায়।
মৌলভীবাজার শহরের সাইফুর রহমান স্টেডিয়াম মাঠে গবাদি পশুর হাটে প্রায় ১৫ মন ওজনের বিশাল আকৃতির একটি ষাঁড় নিয়ে এসেছেন সদর উপজেলার নাজিরাবাদ ইউনিয়নের কোনাগাঁও গ্রামের প্রান্তিক কৃষক মশাহিদ মিয়া ।
এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, আটশত কেজি মাংশ পাওয়া যাবে তার ষাঁড়ে, যার ওজন প্রায় ১৫মন। তিনি এটির দাম হাঁকছেন পাঁচলক্ষ টাকা। তিনি বলেন সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে অতি যত্নে দেশীয় সব খাবার দিয়ে গরুটিকে এপর্যায়ে নিয়ে আশা হয়েছে। মশাহিদ মিয়া ছাড়াও জেলা সদরের সবচেয়ে বড় হাটটিতে সদরের বিভিন্ন গ্রাম থেকে অনেক গরু নিয়ে এসেছেন প্রান্থিক কৃষকরা। ভালো দাম পাওয়ার আশায় অপেক্ষার প্রহর গুনছেন তারা।
 মৌলভীবাজার শহরের প্রধান গবাদি পশুর হাটের ইজাদার জুবায়ের এন্টারপ্রাইজের স্বত্তাধিকারী জুবায়ের আহমেদ জুবের বলেন, এবছর ভারতীয় গরুর সংখ্যা কম, বেশির ভাগ দেশী গরু এসেছে হাটে দাবি করে তিনি বলেন হাটের সংখ্যা বেশি হওয়ায় বেচাকেনা কম। তার আশা অন্তত শেষ দিনে ক্রয়-বিক্রয় বাড়বে এই হাটে।
মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন জানান, সদর উপজেলায় এবছর কোরবানি ঈদকে কেন্দ্র করে নতুন কোন পশুর হাট বসেনি। তবে প্রতিটি ইউনিয়নেই পশুর হাট রয়েছে।
কোরবানি ঈদে শহরের বাহিরে সবচেয়ে বড় পশুর হাট সদর উপজেলার দীঘিরপাড় বাজারে। সেখানে পুরো বছর জুড়ে গবাদি পশুর হাট বসলেও ঈদকে সামনে রেখে জমজমাট বেচাকেনা চলছে বলে জানা গেছে।
এর বাহিরে সদরের মোকামবাজার, শহরের চাদনীঘাট, শেরপুর বাজার,সরকার বাজার,কামালপুর বাজার,গোবিন্দপুর বাজারসহ আশপাশে অনেক গবাদি পশুর হাটে চলছে ক্রয়-বিক্রয়।
সরজমিন রোববার বিকালে সরকারবাজার গবাদিপশুর হাটে বিক্রেতাদের সাথে আলাপ করে জানা যায়,তুলনামূলক ভাবে ক্রেতাদের সংখ্যা কম থাকায় বেপারীরা আশা নিরাশার দোলাচলে রয়েছেন।
এদিকে ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে মৌলভীবাজারের বিভিন্ন এলাকায় গড়ে উঠা কোরবানির পশুর হাট গুলোতে কয়েকদিন আগে থেকেই ছোট-বড় ট্রাকে করে দূর-দূরান্ত থেকে আসছে দেশীয় গরু। এর বাহিরে আশপাশের গ্রাম গুলো থেকেও আসছে ছোট বড় অনেক গবাদি পশু।
 আপর দিকে, পশুর হাটের নিরাপত্তা নিয়ে সচেষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পুলিশের পাশাপাশি হাটের নিরাপত্তা রক্ষায় র‌্যাবের টহল জোরদার করা হয়েছে। সেইসঙ্গে রয়েছে ভ্রাম্যমাণ টিম । প্রতিটি হাটে জাল নোট শনাক্তে আলাদা বুথ বসানো হয়েছ।