পাঁচ দফা দাবী বাস্তবায়ন না হলে ২ সেপ্টেম্বর থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহণ ধর্মঘট

সুরমা ভিউ।।  সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ও সিলেট রেঞ্জের উপ-মহা পুলিশ পরিদর্শক বরাবরে পাঁচ দফা দাবী সম্বলিত এক স্মারকলিপি দাখিল করেছে সিলেট বিভাগ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সড়ক পরিবহণ মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। গত ১৮ আগস্ট রোববার পৃথক পৃথকভাবে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

স্মারকলিপিতে দাবীগুলোর মধ্যে রয়েছে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে চালুকৃত বিআরটিসি বাস সার্ভিস প্রত্যাহার করা, বিআরটিসির লীজপ্রথা বাতিল, মৌলভীবাজার জেলা সদর থানার ২২/৮২ তারিখ ২৩/০৩/২০১৯ইং এর মামলা ৩০২ ধারা বাতিল করে ৩০৪(বি) ধরায় রূপান্ত, সড়ক পরিবহণ কর্পোরেশন আইন ২০১৭ (খসড়া) এর ধারা বাতিল সহ সড়ক মহাড়কে চেকিং এর নামে পরিবহণ শ্রমিকদের উপর পুলিশী নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।
স্মারকলিপিতে নেতৃবৃন্দরা উল্লেখ করেন, সুনামগঞ্জ-সিলেট রোডে চালুকৃত বিআরটিসি বাস সার্ভিস বন্ধের দাবীতে স্মারকলিপি ও সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসকের সাথে সমঝোতা বৈঠক হয়। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় সুনামগঞ্জ-সিলেট রোডে লোকাল মালিক সমিতির সাথে সমন্বয় করে বিআরটিসির নির্দিষ্ট গাড়ি চালক দিয়ে সুনির্দিষ্ট ৪টি গাড়ী চলাচল করতে পারবে। ২০০৩ সালের ২০ আগস্ট উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণ অঞ্চল সড়ক পরিবহণ মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাথে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের চুক্তি মোতাবেক বিআরটিসি বাস জেলায় নিজস্ব বাস ডিপো হতে এবং যেখানে ডিপো নেই স্থানীয় বাস টার্মিনাল হতে লোকাল মালিক সমিতির সাথে সমন্বয় করে বাস চলাচল করার কথা থাকলেও এব্যাপারে ২০১৩ সালের ৪ জুন সিলেট জেলা প্রশাসককে বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন জেলা সড়ক মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। এরপর বিআরটিসি সিলেট ডিপো ম্যানেজার এ সিদ্ধান্তকে তোয়াক্কা না করে সুনামগঞ্জ-সিলেট রোডে বিআরটিসি গাড়ী পরিচালনা করে আসছেন। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। চলতি বছরের ২৩ মার্চ মৌলভীবাজার জেলার শেরপুরের একটি সুড়ক দূর্ঘনাকে কেন্দ্র করে মৌলভীবাজার থানায় ২২/৮২নং মামলা ৩০৪(বি) ধরার পরিবর্তে ৩০২ ধরায় মামলা রুজু করা হয়, যা সড়ক পরিবহণ আইন ১৯৮৩ পরিপন্থী। মামলাটি ৩০২ ধারা বাতিল করে ৩০৪ (বি) ধরায় স্থানান্তর করার দাবী চেকিং এর নামে রাস্তায় পুলিশী নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানান নেতৃবৃন্দরা। এসব সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে গত ১৮ আগস্ট রোববার দুপুর ১২টায় সংগঠনের আহ্বায়ক আবুল কালামের সভাপতিত্বে কুমারগাঁও বাস টার্মিনালে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আগামী ১লা সেপ্টেম্বরের মধ্যে পাঁচ দফা দাবী বাস্তবায়ন না হলে ২রা সেপ্টেম্বর সোমবার সকাল ৬টা হতে সিলেট বিভাগ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় অনির্দিষ্টকালের জন্য সড়ক পরিবহণ ধর্মঘট শুরু হবে।
স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মো. আবুল কালাম, সদস্য সচিব মো. সজিব আলী, যুগ্ম আহ্বায়ক বীর মুক্তিযুদ্ধা সেলিম আহমদ ফলিক, আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন জমসেদ, জাকারিয়া আহমদ, মতছির আলী, সুনামগঞ্চ মালিক সমিতি সভাপতি খলিলুর রহমান, সুনামগঞ্চ মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, সুনামগঞ্জ পন্থ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহুরুল হক, জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং বি ১৪১৮ এর সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিক, কার্যকরি সভাপতি রুনু মিয়া, সহ সভাপতি শাহ জামাল, সহ সাধারণ সম্পাদক হাজী মঈনুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক শেখ সোনাফর আলী লাকি প্রমুখ।