জগন্নাথপুরের দুই বিএনপি নেতা ঢাকা যাত্রাবাড়ী থেকে গ্রেফতার: গুলি সহ অস্ত্র উদ্ধার

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি।।    রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানার্ধীন সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে রাজধানী ঢাকার আশে পাশে এলাকায় বড় ধরণের নাশকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে জড়ো করা অস্ত্র সহ সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার দুই বিএনপি নেতা অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি)’র একদল সদস্য।

যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশের এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো: জাহাঙ্গির আলম বিপিএম,পিপিএম বার এর নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক মো: মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ বিপিএম,পিপিএম, পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বিপিএম, এসআই (নিরস্ত্র) আশুতোষ শীল,

এসআই (নিরস্ত্র) মো: উজ্জল হোসেন সহ আর্মস এনফোর্সমেন্ট টিম, স্পেশাল এ্যাকশন গ্রুপ, কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট ও ডিএমপি একটি বিশেষ টিম মহানগরী এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করিয়া বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্র হাতবদলের সময়

১৬ রাউন্ড গুলিসহ ১২ চেম্বারবিশিষ্ট পয়েন্ট টু টু বোরের দুটি রিভলবার এবং ৬ চেম্বারের পয়েন্ট থ্রি টু বোরের একটি রিভলবারসহ পেশাদার তিন অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃরা হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অস্ত্র ব্যবসায়ী দোলন মিয়া (৩৮), সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের টিয়ারগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে অস্ত্র ব্যবসায়ী আব্দুস শহীদ (৪০)

একই ইউনিয়নের ঘোষগাঁও গ্রামের মৃত মমতাজ উল্লাহ ছেলে অস্ত্র ব্যবসায়ী আনছার মিয়া (৪০)। এ ঘটনায় ওইদিন রাতে যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। পরে শুক্রবার গ্রেফতারকৃত তিন আসামিকে আদালতে হাজির করে ৫দিনের রিমান্ডে চেয়েছেন সিটিটিসি। গ্রেফতারকৃত তিনজনের মধ্যে আবদুস শহীদ জগন্নাথপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ও আনছার মিয়া একই উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক।

জগন্নাথপুর থানার সেকেন্ড অফিসার মো: হাবিবুর রহমান পিপিএম গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, জগন্নাথপুর থানায় জিডি হওয়া দুই বিএনপি নেতা আব্দুল শহীদ ও আনছার মিয়াকে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি)’র একদল সদস্য গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারকৃতদের জন্য ৫দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।