ক্বীনব্রীজ খুলে দেয়ার দাবীতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে দক্ষিণ সুরমাবাসীর স্মারকলিপি প্রদান

সুরমা ভিউ:- অনততো হালকা যান চলাচলের জন্যে পরীক্ষা শুরুর আগেই ছাত্রছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে সিলেট নগরীর প্রবেশ দ্বার হিসেবে খ্যাত ঐতিহ্যবাহী ক্বীনব্রীজ খুলে দেয়ার দাবীতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন এমপির কাছে দক্ষিণ সুরমাবাসী স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।

গত ৮ অক্টোবর বুধবার রাতে ২৫, ২৬ ও ২৭ নং ওয়ার্ডবাসী ও অত্র এলাকার ব্যবসায়ীদের পক্ষথেকে সিলেট ১ আসনের সংসদ সদস্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ড. একে আব্দুল মোমেন কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে ক্বীনব্রীজ বন্ধ হওয়ার ফলে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা থেকে যে সকল শিক্ষার্থী উত্তর সুরমার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ন করতে আসতো, তারা খুবই বিপাকে পড়েছে। এবং দক্ষিণ সুরমার সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আজ ধ্বংসের দার প্রান্তে। তাদের ভোগান্তি দূরীকরণ ও ব্যবসায়ীদের কথা বিবেচনা করে রিক্সা, মোটর সাইকেল ও ভ্যান গাড়ী চলাচলের জন্যে ব্রীজটি খুলে দেওয়ার দাবী জানানো হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন স্টেশনরোড ব্যবসায়ী সমিতির সহ সভাপতি হাজী আব্দুস ছত্তার, জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহসিন কামরান, ২৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের
ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ আমির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সেলিম আহমদ, ২৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সিরাজুল ইসলাম শিরুল, ২৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোয়েব খান, ইসলাম উদ্দিন, ঝালোপাড়া পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি জুনেদ আহমদ, বিশিষ্ট মুরব্বী হাজী আব্বাস উদ্দিন জালালী, ভার্থখলা স্বর্ণালী সংঘের সভাপতি শিপল চৌধুরী, বন্ধন সামাজিক সংগঠনের সভাপতি আব্দুল মালেক তালুকদার, সিলেট উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মোঃ আলী আহমদ, স্বর্ণ শিখা সমাজকল্যান সংস্থার সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আলমগীর হোসেন, জালালাবাদ সূর্যমূখী যুব সংঘের সাবেক সভাপতি শেখ সাদী কোমল, খোজার খলা আদর্শ ক্লাবের সভাপতি মোঃ আকমল হোসেন মলাই, মোঃ শাহজাহান, মোঃ সোহেল, হাজী জাহাঙ্গীর, শামীম আহমদ, রহমত আলী, মহিউদ্দিন দারা ও মোঃ জাকির সহ গণ্যমাণ্য বক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ক্বীনব্রীজ খোলে দেওয়ার আশ্বাস প্রদানের ১৮-১৯দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত ব্রীজ খোলে দেওয়া হয়নি।

এদিকে ক্বীনব্রীজ খুলে দেয়ার দাবীতে আজ সিলেটের জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হবে।