ডিভোর্সের পর একজন নারীর যা করা উচিত

আমাদের চারপাশের সমাজ বাস্তবতায় ডিভোর্সের পর একজন পুরুষের পক্ষে যতটা দ্রুত অস্বস্তি কাটিয়ে ওঠা সম্ভব একজন নারীর পক্ষে ঠিক ততটাই কঠিন। নারীর প্রতি পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গিই এর মূল কারণ। কিন্তু তাই বলে তো আর বসে থাকলে চলে না। জীবনে ভাঙাগড়া থাকবেই। তারপরও আপনাকে এগিয়ে যেতে হবে অভিষ্ট লক্ষ্যের দিকে। জীবনকে চালিত করতে হবে সহজ ও স্বাভাবিক গতিতে। খাপ খাইয়ে নিতে হবে আর দশজনের সঙ্গে।

ডিভোর্সের পর একজন নারী কিভাবে দ্রুত স্বাভাবিকতা ফিরে পেতে পারে, কিভাবে বন্ধু-পরিজন ও সমাজের সবার সঙ্গে নিজেকে মিশিয়ে নিতে পারে এ নিয়েই এই প্রতিবেদনে কিছু টিপস তুলে ধরা হলো:

* সব সময় মাথা উঁচু করে চলুন। মনে রাখতে হবে- আপনি চোর নন। আপনি কারও ক্ষতি করেননি। আপনি অপরাধী নন। অতএব কেউ আপনাকে করুণা করবে এই সুযোগ নেই।

* আপনি যে ঘটনার ভুক্তভোগী এমনই একজনকে খুঁজে বের করুন। তাহলে দেখবেন মনের সব কথা তার সঙ্গে অকপটে ভাগাভাগি করতে পারবেন। ভেতরটাও হালকা লাগবে তখন।

* যত উত্থান-পতনই হোক জীবন কখনও থেমে থাকে না। তাই ডিভোর্সের পর আপনি নিজেকে সময় দিন। নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবুন। অন্যের ওপর থেকে নির্ভরশীলতা পরিহার করুন। আপনার মূল্য যে কতটা সেটা অন্যদের বুঝিয়ে দিন কাজের মধ্য দিয়ে।

* ডিভোসের পর আত্মগ্লানিতে অনুভব করে অনেকেই পরিবারের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ায়। কিন্তু ভুলেও তা করা যাবে না। বরং স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়ার পর বাবা-মা কিংবা ভাই-বোন বন্ধুদের সঙ্গে বেশি বেশি সময় কাটান।

* আপনি যা করতে পছন্দ করেন তা বেশি বেশি করুন।

* ডিভোর্স নিয়ে নিজের ওপর থেকে সব দোষ ঝেড়ে ফেলুন। নিজেকে ফুরফুরে নির্ভার রাখুন।

* ডিভোর্সের পর তাড়াহুড়ো করে নতুন সম্পর্কে জড়াবেন না। প্রবাদে আছে- ঘর পোড়া গরু সিঁদুরে মেঘ দেখলেও ডড়ায়’। তাই নতুন কাউকে মন দেয়ার আগে ভালো করে যাচাই বাছাই করে নিন। বুঝেশুনে নতুন প্রেমে পড়ুন।

* ডিভোর্সের পর নতুন কোনও পুরুষের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে আপনার অতীত তাকে খুলে বলুন। তাকে ভবিষ্যতটা ঝুঁকিমুক্ত হবে।

* নিজেকে ডিভোর্সি ভেবে হতাশ হবেন না। নিজের ওপর আত্মবিশ্বাস রাখুন। সবসময় পজেটিভ থাকার চেষ্টা করুন।