১৫দিনে স্কুলছাত্র সহ ২পথচারী নিহত কানাইঘাটে নিয়ন্ত্রণ নেই পাহাড়ী মটর-সাইকেলের

কানাইঘাট প্রতিনিধি:-  কানাইঘাটে দুর্গম পাহাড়ী এলাকায় শত শত মটর-সাইকেলের কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। ইচ্ছেমত আঁকা বাঁকা পথে ছুঠছে তারা। ড্রাইভিং লাইসেন্স, হেলমেট তো থাকা দুরের কথা কোন একটি সাইকেলের কাগজপত্রও নেই। তাদের উপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোন নিয়ন্ত্রন না থাকায় তারা বেপরোয়া ভাবে যাত্রীদের নিয়ে চলাচল করেন। এতে অহরহ বাড়ছে র্দুঘটনা। গত ১৫ দিনে তাদের বেপরোয়া গতিতে ছুটে চলা মটর-সাইকেলের চাপায় স্কুল ছাত্রসহ দুইজন পথচারীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে গত ১৫ অক্টোবর উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি’র খুকুবাড়ি গ্রামের মৃত ইউসুব আলীর পুত্র হাবিবুর রহমান বিকাল ৫ টার দিকে স্থানীয় বুধবারী বাজারে যাওয়ার পথে একই ইউপির লক্ষপ্রসাদ পুরানগাও গ্রামের মুছব্বির আলীর পুত্র উসমান আলীর বিপরীতগামী মটর-সাইকেলের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে তার মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। এর পূর্বে গত ৩ অক্টোবর একই ইউপি’র আগফৌদ গ্রামের ফারুক আহমদের পুত্র স্থানীয় কালিনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র জুনেদ আহমদ স্কুলে যাবার পথে পাশর্^বর্তী নুনছড়া ২য় খন্ড গ্রামের নুর মিয়ার পুত্র মোহাম্মদ আলীর বেপরোয়া মটর-সাইকেলের ধাক্কায় গুরুত্বর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৪ আক্টোবর তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হলেও এখনো মটর-বাইক চালক মামলার আসামী মোহাম্মদ আলী গ্রেফতার হয়নি। এ ব্যাপারে কালিনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সোলেমান আহমদ জানান অবৈধ এসব মটর-সাইকেলের বেপরোয়া চলাচলের কারনে শিশু শিক্ষার্থী সহ তাদের রাস্তা হয়ে চলাচল করা ঝুকির মধ্যে পড়েছে। স্থানীয় এলাকাবাসী জানান তাদের উপর প্রশাসনের কোন নিয়ন্ত্রন বা নজরধারী না থাকায় পাহাড়ী এলাকায় একের পর এক র্দুঘটনা বাড়ছে। এদের দু’একজনকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি হলে হয়তো তারা কিছু ভয় পেত। এদিকে নিহত স্কুল ছাত্র জুনেদের বাবা ফারুক আহমদ দ্রুত ঘাতক মোহাম্মদ আলীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে তার পুত্র হত্যার বিচার দাবী করেছেন।