ভোলায় মুসল্লিদের উপর হামলার প্রতিবাদে সিলেটে ছাত্র জমিয়তের বিক্ষোভ মিছিল

সুরমা ভিউ:-  ফেইসবুকে হিন্দু উগ্রবাদী কর্তৃক মুসলিম ও মহানবী (সঃ) কে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ভোলায় রাসূলপ্রেমী জনতার শান্তিপুর্ণ মিছিলে পুলিশের নৃশংস হামলা ও পুলিশের গুলিতে মুসল্লিদের হত্যার ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ সিলেট মহানগর শাখা। রোববার (২০ অক্টোবর) বাদ আছর নগরীর বন্দরবাজারস্থ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় সিটি পয়েন্টে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

সিলেট মহানগর ছাত্র জমিয়তের সভাপতি মোহাম্মদ লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তারা বলেন, এ হামলা ও হত্যাযজ্ঞ উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আল্লাহ, আল্লাহর রাসূল সা. কে নিয়ে কটুক্তি করার পর কোন মুসলমান ঘরে বসে থাকতে পারে না। আজ ভোলার বোরহান উদ্দীন থানায় উগ্রবাদী হিন্দু কর্তৃক আল্লাহ ও আল্লাহর রাসূল সা. কে কটুক্তি করার প্রতিবাদে ঈমানদার তৌহিদী জনতা রাস্তায় নেমে আসলে পুলিশ বাহিনীর নৃশংস হামলা ও গুলি নিক্ষেপে শতশত মুসলমান আহত ও মুসল্লিদের শহীদ করা হয়েছে। এ ঘটনায় সারা দুনিয়ার রাসূলপ্রেমীরা মর্মাহত হয়েছেন।
বক্তারা বলেন, ৯৫ ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত একটি দেশের পুলিশ প্রশাসনের কাছে মানুষ যদি নুন্যতম আল্লাহ ও তার রাসূলের ইজ্জতের নিরাপত্তাটুকুও না পায় তাহলে মানুষ যাবে কোথায়?
বক্তারা এই ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে আরও বলেন, রাসূল প্রেমীদের একটি মিছিলের কারণে ভোলায় পরিস্থিতির এমন কোন অবনতি ঘটেনি যে, সেখানে পুলিশকে গুলি করতে হবে। অবস্থাপ্রেক্ষিতে মনে হচ্ছে পুলিশ প্রশাসনে ঘাপটি মেরে বসে থাকা ইসলাম বিদ্বেষী উগ্রবাদী কোন চক্রের এজেন্টরা এই ঘটনা ঘটিয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চাইছে। বক্তারা বলেন, অবিলম্বে এই জঘন্য, পৈশাচিক হত্যাযজ্ঞের বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করে অপরাধীদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় রাসূলপ্রেমী তৌহিদী জনতার ঈমানী আন্দোলনের মাধ্যমে দেশে কোন অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে দায়ভার সরকারকেই বহন করতে হবে।
পরে শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ও আহতদের সুস্থতা কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
মিছিল সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সিলেট মহানগর সিনিয়র সহ সভাপতি অধ্যক্ষ হাফিজ আব্দুর রহমান সিদ্দিকী, জেলার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ হাফিজ সালিম আহমদ ক্বাসেমী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা ছদরুল আমিন, সহ সাধারণ সম্পাদক মুফতি মতিউর রহমান, জেলার প্রচার সম্পাদক সালেহ আহমদ শাহবাগী, মাওলানা খায়রুজ্জামান, হাফিজ কবির আহমদ, যুব জমিয়তের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ রুহুল আমিন নগরী, মহানগর যুব জমিয়তের প্রচার সম্পাদক মাহদি হাসান মিনহাজ, অর্থ সম্পাদক আবু সুফিয়ান, মহানগর ছাত্র জমিয়তের সিনিয়র সহ সভাপতি হাফিজ শাহিদ হাতিমী, সহ সভাপতি আবুল খয়ের, কে.এম ফয়েজ, জেলা ছাত্র জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক হাফিজ ফয়েজ উদ্দিন, মহানগর সহ সাধারণ সম্পাদক হাফিজ জাহেদ আহমদ, ছাত্রনেতা আব্দুল হাই আল হাদী, প্রচার সম্পাদক আবু হানিফ সাদি, নুরুল ইসলাম, আইনুল হক প্রমুখ।