আমাদের সংবিধান মানবাধিকারকে সমুন্নত করেছে – অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নাছির উল্লাহ খান

সুরমা ভিউ।।  মানুষের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক সামাজিক ক্ষেত্রে প্রকৃত কল্যাণ প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যেই মানবাধিকারের উদ্ভব। মানবাধিকার কথাটার ব্যবহার আজ থকে দুইশ বা তিনশ বছর পূর্বে থেকে ব্যবহার করা হচ্ছে। যদিও এর প্রকৃত ধারণা খ্রিস্টপূর্ব প্রায় দুই হাজার অব্দ হতে বিরাজ ছিল। ১৯৪৮ সালের ১০ ডিসেম্বর সার্বজনীন মানবাধিকার ঘোষণার মাধ্যমে মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভ করে। যা মানবাধিকারের ইতিহাসে এক বিশেষ মাইল ফলক। প্রকৃত পক্ষে আজ থেকে চৌদ্দশত বছর পূর্বে হযরত মুহম্মদ (সাঃ) প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আজকের বিশ্বে মানবাধিকারের গুরুত্বও তাৎপর্য সার্বজননীন। আমাদের সংবিধান মানবাধিকারকে সমূন্নত করেছে। সংবিধানের মৌলিক অধিকার গুলোই মানবাধিকারের কথা বলে।

৮ নভেম্বর শুক্রবার মানবাধিকার বাস্তবায়ন কমিশন সিলেট মহানগর শাখা কর্তৃক আয়োজিত মানবাধিকার বিষয়ক আলোচনা সভা ও সম্মানা প্রদান অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নাছির উল্লাহ খান একথাগুলো বলেন।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল ও সহকারী পুলিশ কমিশনার কতোয়ালী মডেল থানা সিলেটের নির্মলেন্দু চক্রবর্তী।
সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আ.ম.ন জামান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও শিল্পী জয়ন্তি রাণীর পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন সংঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি হাজী হাবিবুর রহমান মজলাই বাবু কানুলাল পাল মো. জাহাঙ্গীর আলম রফিক, মো. ইকবাল হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সামসুজ্জামান জামান, শাহজাহান আহমদ লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করীম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মিন্টু দেবনাথ মিঠু, তোফাজ্জল আলী, আব্দুল হান্নান শরীফ, বাবুল আহমদ, অসীম রায়, আতিক সিকদার, মাও সামসুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক নূরে আলম সাদেক, মিজানূর রহমান, আজাদ মিয়া, মাও আব্দুল মতিন খসরু, ওয়াসিম মিয়া, মাসুদ আলী বাচ্চু, মনির উদ্দিন, টিটু চক্রবর্তী জাহাঙ্গীর শাহ জোছনা আক্তার আয়েশা জান্নাত রুবী, ঝুমা রাণী দাস, আরতি রাণী দাস, ফরিদা আলম, সপ্না রাণী দাস, সুহেল আহমদ, আলেয়া বেগম, শাহরিয়ার আহমদ ইমন, সুনাম আহমদ এখলাছুর রহমান, মোস্তাক আহমদ, মো. মনির উদ্দিন, রানু দে পরিমল মালাকার, ফরিদ মিয়া, সানুর মিয়া, জয়ন্তি দাস, রাব্বী আহমদ, জিয়াউল হক আল আমীন, রুবেল আহমদ, আব্দুল আলী কয়েস আহমদ রানা, ময়নুল ইসলাম দেলোয়ার আলী হোসেন জুয়েল মিয়া গৌতম, অজয় আলতাফ হোসেন, আশরাফ আহমদ, সুমন আহমদ, সাদিক হোসেন এপলু, মাও: সাফিউর রহমান, ফজলু মিয়া, মিসবাহ উদ্দিন স্বাধীন, জানু মিয়া, লুৎফুর রহমান, মাজেদুল ইসলাম নাহিদ, হুমায়ুন তালুকদার, চম্পা আক্তার বিথিকা পাল।
পরে মানবাধিকার বাস্তবায়ন কমিশন সিলেট মহানগর শাখার পক্ষ থেকে সামাজিক আন্দোলন ও সমাজ সেবায় বিশেষ ভূমিকা রাখার জন্য বাবু কানু লাল পালকে ও সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়। বিজ্ঞপ্তি