ছাতকে অতর্কিত হামলা ও সংঘর্ষে ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান সহ অধশতাধিক আহত

ছাতক প্রতিনিধি::ছাতকে অবৈধ ভারতীয় তীরের অতর্কিত হামলায় ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যানসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। গুরুত্ব আহতদের সিরাজ মিয়া, ছাব্বিরআহমদ আনকার আলী, আলী নূর আতিক সায়েক মিয়া ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান লিটন মিয়া (৪০)কুটি মিয়া.রিয়াজ মিয়া, আমেলা বেগম, মায়ারুন নেছা, মাহমদ আলী, জাবেদ আহমদ, খালেদ আহমদ, তাহমিদ মিয়াসহ ১৩ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি আহতদের ছাতক, কৈতকসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার কালারুকা
ইউনিয়নের গন্ধভ গ্রামের ফুটবল খেলা চলাকালি সময় সুজন মিয়া ও শিপনের নেতৃত্বে মাগরিবের নামাজের আগে খেলার মাঠে টুকে  অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রের ও ভারতীয় তীর দিয়ে তাদের উপর এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ হামলার ঘটনার অবশেষে প্রতিপক্ষ প্রতিরোধ করতে গিয়ে গ্রামের দুইপক্ষের মধ্যে ১ ঘন্টাব্যাপি
সংঘর্ষে মহিলা সহ ২০ব্যক্তি আহত হয়েছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুইপক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে মামলা মোকদ্দমা চলে আসছে। গ্রামে অস্ত্রধারি সন্ত্রাসী সুজন
ও শিপন নেতৃত্বে ইউপি প্যানেল চেযারম্যানসহ অতকিত হামলা চালায়। এ হামলা প্রতিরোধ করতে উভয়দের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এক পর্যায়ে এহামলার ঘটনা নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে তুমুল চলছে। সংঘর্ষের সময় দেশিও অস্ত্রের পাশাপাশি
আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার করেছে শিপন সুজন পক্ষের রোকজন। স্থানীয় একাধিক
লোক জানান,অতর্কিত হামলা পর দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ছড়িয়ে পড়ে। এ ব্যাপারে ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান লিটন মিয়া এ সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান,তারা দেশী অস্ত্রনিয়ে তাদের উপর অতকিত হামলা ও বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাট চালিয়ে আতংক সৃষ্টি করেছে।এ ঘটনার খরব পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল
পরিদর্শন করেছে। এব্যাপারে ওসি মোস্তফা কামাল এ সংঘর্ষের ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন অভিযোগ পেলেই আইনানুগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।