কোম্পানীগঞ্জে আলোচিত ময়না মিয়া হত্যাকান্ডের ৫ আসামী গ্রেপ্তার ও রহস্য উদঘাটন

কবির আহমদ, কোম্পানীগঞ্জ।।  সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার আলোচিত ময়না মিয়া হত্যাকান্ডের ৫ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ।

গত ৯ সেপ্টেম্বর শনিবার ময়না মিয়া নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর ১০ সেপ্টেম্বর ময়না মিয়ার লাশ বাগারপাড় গ্রামের জৈনিক মজমিল আলীর পুকুরপাড় থেকে উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ।
নিহতের ভাই তুতা মিয়া বাদী হয়ে ১২সেপ্টেম্বর অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা (নং ০৭) দায়ের করে।
নিহত ময়না মিয়া বাগার পাড় গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, হত্যাকান্ডের মূল ঘটনাকারী শাহিন মিয়া (৩২) কে তথ্য প্রযুক্তির সহতায় গত ১৬ নভেম্বর গাজীপুর জেলার টঙ্গি থানাধীন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করলে ১৬৪ দ্বারায় ঘটনার দায় স্বীকার করে স্বীকারোক্তি দিয়ে বলেন পূর্ব শত্রুতার জেরে ময়না মিয়াকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করি। শাহিনের স্বীকারোক্তির প্রেক্ষিতে বাগারপাড় গ্রামের বাশার ও আবুল খায়েরকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরন করেছে পুলিশ।
এর আগে ২৬ অক্টোবর রমজান আলী সেলু (৩৫) ও ২৭ অক্টোবর ছিদ্দিক আলী (৫০)কে ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করে তদন্তকারী অফিসার। ৩০২/২০১ দ্বারার ৩৪ দন্ড বিধির এই মামলাটি দীর্ঘদিন তদন্ত শেষে আসামীদের গ্রেপ্তার করায় কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি সজল কুমার কানুর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বাদী তুতা মিয়াসহ এলাকাবাসী।
এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি সজল কুমার কানু জানান, এই আলোচিত হত্যা মামলাটির কোন প্রকার প্রমান রাখেনি হত্যাকারীরা। দীর্ঘ দিনের পরিশ্রম ও তথ্য প্রযুক্তির সহযোগিতায় খুব কম সময়ে ক্লো বিহীন হত্যা মামলাটির সকল আসামীদের আটক করতে সক্ষম হয়েছি। তিনি আরো বলেন মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে। কোম্পানীগঞ্জের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।