সড়ক অবরোধ, হেলিকাপ্টারে পূর্ণিমা

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস গাঙচিল থেকে নির্মিত ছবি ‘গাঙচিল’ এর দ্বিতীয় ধাপের শুটিং শুরু হয়েছে ১৭ নভেম্বর। শুটিংয়ের জন্য গতকাল বুধবার (২০ নভেম্বর) নোয়াখালীতে যাওয়ার কথা ছিল পূর্ণিমার। কিন্তু সড়কপথে অবরোধ থাকায় শুটিংয়ে অংশ নেওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়ে পূর্ণিমাসহ পুরো শুটিং ইউনিটের। পরে উপায় না পেয়ে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট ইউনিয়নে হেলিকপ্টারে চড়ে যান পূর্ণিমা।

দেশের এক শীর্ষ জাতীয় দৈনিককে নোয়াখালী থেকে মুঠোফোনে পূর্ণিমা বলেন, ‘প্রস্তুতি নিয়েছিলাম ভোরবেলা সড়কপথে রওনা হব। কারণ, সকাল থেকেই আমার অংশের শুটিং শুরু হবে। কিন্তু বের হওয়ার পর জানতে পারলাম, শ্রমিকেরা নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংস্কারের দাবিতে রাস্তাঘাট অবরোধ করেছেন। এ কারণে জরুরিভাবে হেলিকপ্টারে করে এখানে এসেছি।’

শুটিং লোকেশন থেকে মুঠোফোনে ছবির পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নিয়ামূল বলেন, ‘সড়কপথ অবরোধের কারণে জরুরিভিত্তিতে হেলিকপ্টারে করে নায়িকাকে আনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কারণ, পুরো দিনই নায়িকার অংশের শুটিং। সকাল থেকে আমরা তাঁর অপেক্ষায় বসে ছিলাম।’ পরিচালক জানান, এই পর্বে টানা ১৫ দিন শুটিং হবে। নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট ইউনিয়নের গাঙচিল চরের নাম থেকেই ছবির নাম গাঙচিল রাখা হয়েছে। ছবিতে চরের মানুষের জীবনের গল্প উঠে এসেছে। ছবিটিতে এনজিওর কর্মী মোহনার চরিত্রে অভিনয় করছেন পূর্ণিমা।