|

আদর্শ গ্রাম জগদল

নিজস্ব প্রতিবেদক  ::দিরাই উপজেলার জগদল ইউনিয়নের জগদল গ্রাম অনেকের কাছেই রূপকথার গ্রাম মনে হতে পারে। রূপকথা নয়, বাস্তবেই এ গ্রাম শতভাগ শিক্ষিত, নেই বাল্যবিয়ে ও যৌতুকের প্রচলন। প্রায় সত্তর বছর ধরে এখনও এ গ্রামের কোনো মামলা থানায় যায়নি।দু-একটা হলেও এলাকার বিচারপতিদের কারনে নিস্পত্তি হয়ে যায়।

সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলা সদর থেকে ৭ কিলোমিটার দূরের জগদলের জনসংখ্যা প্রায় ৫ হাজার। বাল্যবিয়ে ও যৌতুকমুক্ত, শতভাগ স্যানিটেশন ও নিরক্ষরতামুক্ত গ্রামটির পরিচালনায় রয়েছে নিজস্ব নীতিমালা। এখানে সামাজিকভাবে সব ধরনের বিরোধ মীমাংসা করা হয়।

আজকেও ঈদের পর দিনই জগদল গ্রামের প্রধান মসজিদ ভেঙে নতুন করে বড় আকারে মসজিদ  তৈরিকরণ নিয়ে অনেক দুশ্চিন্তায় পরে যায় গ্রামবাসী। এ নিয়ে দফায় দফায় সিলেট, লন্ডন এ বৈটক হয়েছে চাঁদা উঠানোর জন্য।অনেকে অনেক প্রতিশ্রুতি ও দিয়েছেন।সু খবর হচ্ছে এই অত্র এলাকার বিশিষ্ট সমাজ সেবক দানবীর মোজাম্মিল হোসাইন ঘোষনা দেন তিনি একাই ৪০ লক্ষ টাকা দেওয়ার ঘোষণা প্রদান করেন।এ নিয়ে আজ শুক্রবার এলাকার সর্বস্তরের জনতা একত্রিত হয়ে সিদ্ধান্ত নেন আগামী সোমবার দিরাই,সুনামগঞ্জ, সিলেট, ঢাকাস্থ যারা বসবাস করেন তাদের নিয়ে এলাকায় বৈঠক করে পুরাতন মসজিদ ভেঙে নতুন মসজিদ তৈরির কার্জক্রম শুরু হবে।এবং যার যার অবস্থান থেকে মসজিদ এ দান করার আহবান করা হয়েছে।

এ সময় বক্তব্য রাখেন , আলহাজ্ব মজম্মিল হোসাইন,আব্দুল মতিন মেম্বার,আবু তাহের মাষ্টার,বদরুল হোসেন,ইসবর মিয়া,আজিজ মিয়া,আব্দুল আলীম,হাফিজ জাহাঙ্গীর, আবুল কাসেম,হুমায়ুন রশিদ লাভলু,তোফায়েল আহমদ, লন্ডন প্রবাসী মানোয়ার হোসাইন সহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ।

 

সংবাদটি 1,259 বার পঠিত
advertise