|

ওষুধ ছাড়াই ভালো হবে ব্যাক পেইন!

কমবেশি সবার ব্যাক পেইন অর্থাৎ কোমরের বা মাজার ব্যথা হতে পারে।বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বার্ধক্যে এই সমস্যা প্রবল আকার ধারণ করতে পারে।একটানা চেয়ারে বসে থাকলে বা দূরে কোথাও ঘুরতে গেলে, এটি হতে পারে। শুধু ওষুধ খেলেই যে এই সমস্যার সমাধান মেলে, তা নয়।ওষুধ ছাড়াও ভালো হতে পারে ব্যাক পেইন।তবে ওষুধ সেবনের আগে অবশ্যই নিতে হবে ডাক্তারের পরামর্শ।

ব্যাক পেইন কেন হয়? 
বিভিন্ন কারণেই ব্যাক পেইন হতে পারে। মূলত মেরুদণ্ড বা স্পাইন-সম্পর্কিত ব্যথাকেই আমরা ব্যাক পেইন বলা বলে থাকি। স্নায়ু, পেশি, হারজোড় ইত্যাদি কারণেই ব্যাক পেইন দেখা যায়। মেরুদণ্ডের পেশি, স্নায়ু, হাড়ের জোড়া যদি সঠিক অবস্থানে সঠিক কাজ না করতে পারে, তাহলে ব্যথা সৃষ্টি হয়।
ব্যাক পেইন বিষয়ে যুগান্তরের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় আলোচনা করেছেন ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতালের চেয়ারম্যান ও চিফ কনসালট্যান্ট ডা.এম ইয়াছিন আলী।
ডা.এম ইয়াছিন আলী বলেন, ব্যাক পেইন খুবই যন্ত্রণাদায়ক ব্যাপার।তবে অনেকের ধারণা, ওষুধ না খেলে ব্যাক পেইন ভালো হয় না। এটি একটি ভুল ধারণা। প্রাথমিক অবস্থায় কিছু নিয়ম মেনে চললে ওষুধ ছাড়াই ভালো হতে পারে ব্যাক পেইন। তবে দীর্ঘদিন ব্যথা থাকলে অবশ্যই ডাক্তরের পরামর্শ নিতে হবে। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোনো ওষুধ খাওয়া ঠিক নয়।
তিনি বলেন, ব্যাক পেইন  সহ্য করা অনেক কঠিন ব্যাপার। সচেতনতা ও সঠিক অভ্যাসেই মিলতে পারে এই সমস্যার সমাধান,ওষুধে নয়।
আসুন জেনে নিই ওষুধ ছাড়াই কীভাবে ভালো হতে পারে ব্যাক পেইন।
পিঠ সোজা করে বসা
ব্যাক পেইন হলে পিঠ বাঁকা করে নয়, সোজা হয়ে বাসার অভ্যাস করুন। প্রথমেই আপনাকে যে কাজটি করতে হবে, সেটি হলো পিঠ সোজা করে বসতে ও চলাফেরা করতে হবে।
ঘুমানোর সময় দুই পায়ের নিচে বালিশ 
শোয়ার সময় দুই পায়ের নিচে বালিশ বা এই জাতীয় কিছু একটা দিয়ে পা উঁচু করে রাখতে হবে।
অফিসের কাজের সময়
অফিসের কাজের সময় অনেক ক্ষেত্রে দীর্ঘ সময় আপনাকে চেয়ারে বসে থাকতে হয়। অফিসে বা কাজের ক্ষেত্রে বসবার জায়গাটা যেন উঁচু থাকে, সেদিকে লক্ষ্য রাখুন।
ভারী কাজ করা যাবে না
ভারী পানির বালতি বা ভারী কোনো ব্যাগ বহন করলে ব্যাক পেইন হতে পারে। তাই ভারী কিছু বহন করা যাবে না।
বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেল
বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেল চালানোর কারণে ব্যাক পেইন হতে পারে। এক্ষেত্রে বাইসাইকেল চালানো পরিহার করতে হবে।
বিশ্রাম নিন
ব্যাক পেইন হলে যেটি করতে হবে, সেটি হলো বিশ্রাম নিতে হবে। ব্যাক পেইন ভালো হওয়ার ক্ষেত্রে বিশ্রামের বিকল্প নেই।
সেঁক ও বরফ
ব্যাক পেইন সারাতে সেঁক ও বরফ দেয়া যেতে পারে। কখনও কখনও সেঁক দিলে অথবা বরফ দিলে উপকার পেতে পারেন।  এক্ষেত্রে অনেক দিন ব্যাথা থাকলে গরম সেঁক দেয়া যেতে পারে। আর আঘাত পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যথা সারাতে বরফ দিতে হবে।
ডাক্তারের পরামর্শ ব্যায়াম
ব্যাক পেইন সারাতে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যায়াম করা যেতে পারে। ব্যথা ভালো হওয়ার জন্য অনেক সময় ব্যায়াম খুব কাজে দেয়।
ওষুধ সেবন
ব্যথা অনেক বেশি হলে পেইনকিলার খেতে পারেন কিন্তু ক্লোফেনাক ধরনের ওষুধ বেশি খাওয়া ভালো না। এসব ওষুধ খাবার আগে অবশ্যই অ্যান্টাসিড জাতীয় ওষুধ খেয়ে নেবেন। ব্যাক পেইন হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোনো ওষুধ সেবন করা উচিত নয়।
লেখক : চেয়ারম্যান ও চিফ কনসালট্যান্ট, ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতাল, ধানমণ্ডি, ঢাকা

সংবাদটি 263 বার পঠিত
advertise