|

একজন রয়েল রানা!

সুরমা ভিউ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।

৯০ এর দশকের শুরুর দিকের কথা, ফেনীর ছাগলনাইয়ার লক্ষীপুর গ্রামের স্কুল পড়–য়া একটি ছেলে, গাছ পালা ও লতা পাতার প্রতি যার প্রচন্ড ভালবাসা, স্কুল ব্যাগে থাকতো বই খাতা, আর থাকতো ছোট বড় গাছ পালার পাতা, ফুল ফল ইত্যাদি, মা বিবি খাদিজা বেগমের কাছে এ নিয়ে বকুনিও কম খেতে হয়নি তাকে কিন্তু ছোট বেলা থেকেই প্রকৃতির নেশায় পেয়ে বসেছিল ছেলেটিকে।
কথা বলছি এক্সিলেন্ট গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ২০১৭ সালের বাংলাদেশ উদ্যোক্তা সংস্থা কর্তৃক নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ সফল উদ্যোক্তার।

আনোয়ার এইচ রয়েল রানা, পিতা, সিদ্দিক আহমেদ এর অনুপ্রেরনা ও মায়ের আর্শিবাদ যার পথ চলার সঙ্গী।

বয়সে তরুন ১৯৮৪ সালে ২১ মার্চ জন্ম। স্কুলের গন্ডি পার হয়েছেন ১৯৯৯ সালে। এসএসসির পর ৩ মাস সময় পেয়ে ছিলেন ছোট বেলার ভালো লাগার প্রকৃতিকে আরো কাছে থেকে জানার ও বোঝার। সাথে যোগ হয় বই পড়ার ঝোঁক, কি করে প্রকৃতি থেকেই তৈরী করা যায় বিভিন্ন খাদ্য পণ্য? যা শুধু খাদ্য হিসেবে নয়, ঔষধের বিকল্প হিসেবে ও কাজ করবে এই চিন্তাই হয়ে ওঠে তার ধ্যান জ্ঞ্যান। স্বপ্ন বুনতে শুরু করেন তখন থেকেই এরপর ২০১০ সালে এমবিএ ডিগ্রী অর্জনের পর নিজের স্বপ্ন কে রূপান্তর করেন জীবনের লক্ষ্যে।
শুরু হয় এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এর যাত্রা, শুরুতেই কাংখিত সাফল্য আসেনি, চলার পথ ও সহজ ছিলনা। প্রয়োজন ছিল লোকবল ও অর্থের।

কালের বিবর্তনে আজ মাত্র কয়েকটি বছরেই এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড পরিনত হয়েছে প্রাকৃতিক খাদ্য উৎপাদন ও ঔষধী গুন সম্পন্ন খাদ্যপণ্য তৈরীতে বাংলাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কোম্পানীতে, যার শুরু থেকে এই পর্যন্ত প্রত্যেকটি ক্ষুদ্র পরিসরেও রয়েছে আনোয়ার এইচ রয়েল রানার বিজ্ঞ বিশ্লেষণ ও সর্বোপরি মানুষের কল্যাণ করার ইচ্ছা।
সেবার মাধ্যমে মানুষকে কিভাবে সুস্থ্য করে তোলা যায় এটি তার আরও একটি গবেষনার বিষয়, নিজের গবেষণার সাফল্য অর্জনের স্বীকৃতি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন খিদমাহ্ প্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থা উদ্ভাবক হিসেবে। প্রতিষ্ঠা করেছেন ম্যান ফর ম্যান নামে একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান।

আনোয়ার এইচ রয়েল রানার কথা হলো “আমরা প্রকৃতি থেকেই সৃষ্ট, আমাদের সুস্থ্য করে তোলার উপায় প্রকৃতিতেই লুকাইত রয়েছে। সঠিক খাদ্য নির্বাচন, নিয়মানুবর্তিতা ও কিছু স্বাস্থ্য পরামর্শ মানুষকে নিরোগ জীবন এনে দিতে পারে।”
জনাব আনোয়ার এইচ রয়েল রানা প্রতিষ্ঠিত এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এ আজ পণ্য রয়েছে ১০০টির ও বেশী, প্রতিটি পণ্যই ব্যাপক জনপ্রিয়। এক্সিলেন্ট পরিবারকে তিনি নিয়ে যেতে চান সফলতার অনন্য শিখরে। আজ একান্ত উদ্যোগ ও নিরলস প্রচেষ্ঠায় এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড দেশের পাশাপাশি বিদেশেও পণ্য রপ্তানী করছে।

আনোয়ার এইচ রয়েল রানা একক সাফল্যে বিশ্বাসী নয়, দেশকে ভালবেসে দেশের মানুষকে সাথে নিয়ে এগিয়ে যাওয়াই তার লক্ষ্য, তাইতো আজ জনমানুষের অন্যান্ত পছন্দের একজন সফল ব্যবসায়ী সর্বপরি একজন সৎ ও পরিশ্রমী মানুষ হয়ে উঠতে পেরেছেন।

সহধর্মীনি ও তিন পুত্রের ছোট সুখের সংসারে হয়তো ঠিকমত সময় দিতে পারেন না, তার পরিবার আজ সমগ্র এক্সিলেন্ট পরিবার। দেশের প্রতিটি বেকার মানুষকে আলোর দিশারী দেখিয়ে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। প্রতিনিয়ত বড় হচ্ছে সেই পরিবার।

রয়েল রানা তার গবেষনায় অন্তর্ভুক্ত করেছেন নিম, তুলসি, কালোজিরা, মধু, রসুন, এলোভেরা, সজিনা, মাশরুম, জিনসেং সহ আরো অনেক গুন সম্পন্ন ভেষজ উদ্ভিদ। এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড এর তুলশি জুস আজ সারা দেশব্যাপী ব্যাপক চাহিদা সম্পন্ন। এছাড়াও ডায়াবেটিক রোগী ও হৃদরোগীদের জন্য রয়েছে, গ্লুকোজ কন্ট্রল, হার্ট কেয়ার, রয়েছে বিশুদ্ধ ও আন্তর্জাতিক মানের প্রসাধনী।
মহান আল্লাহ্ তায়ালাকে স্মরণ রেখে জীবনের প্রতিটি মুহুর্তে ছুটে চলেছেন দেশ থেকে দেশান্তরে মানুষের কল্যাণে।

সংবাদটি 198 বার পঠিত
advertise