|

শারীরিক সম্পর্কের জন্য মোটা অঙ্কের অর্থ দিয়েছিলেন রোনালদো!

বর্তমান সময়ে ফুটবলের অন্যতম সেরা তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গোটা বিশ্বজুড়ে রয়েছে তার অসংখ্যক ভক্ত। মাঠে নেমেই বিপক্ষে বিরুদ্ধে যিনি ত্রাস ছড়ান। কিন্তু, সেই রোনালদোর বিরুদ্ধেই উঠল ধর্ষণের অভিযোগ!

আর ধর্ষণকাণ্ডে বেশ বিপাকে পড়েছেন পর্তুগিজ এই সুপারস্টার। তবে ধর্ষণের অভিযোগকে ‘ফেক নিউজ’ হিসেবে চিহ্নিত করলেন জুভেন্টাস তারকা রোনালদো।

রোনালদো জানিয়েছেন, তার নামে অভিযোগে এনে প্রচারের আলোচনায় নিজেকে আনাই উদ্দেশ্য।

এদিকে, মার্কিন মডেলের করা ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে নতুন করে তদন্ত শুরু করেছে লাস ভেগাসের পুলিশ। অভিযোগকারীর অনুরোধে নতুন করে তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বিষয়টি নিয়ে লাস ভেগাস পুলিশ জানিয়েছে, ২০০৯ সালে প্রথম বার তাদের কাছে এই অভিযোগ আসার পরে তারা তদন্তও করেছিল। কিন্তু এক্ষেত্রে কাউকেই সন্দেহজনক বলে মনে হয়নি।

পুলিশ দফতর থেকে বলা হয়েছে, ‘অভিযোগ করার সময় অভিযোগকারী ঘটনার কোনও সাক্ষীর নাম বা কাকে সন্দেহ করা হচ্ছে তা নিয়ে কিছুই জানাননি।’

পুলিশ তাদের বিবৃতিতে আরও বলেছে, ‘২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে নতুন করে আমরা তদন্ত শুরু করছি নতুন পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে।’

উল্লেখ্য, জার্মান ম্যাগাজিনের খবর অনুযায়ী ২০০৯ সালের জুন মাসে লাস ভেগাসে হোটেলের ঘরে এক মার্কিন তরুণীকে ধর্ষণ করেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ক্যাথরিন মায়োরগা নামে ৩৪ বছর বয়সী ওই তরুণীর অভিযোগ, মুখ বন্ধ রাখার জন্য তাকে ভারতীয় মুদ্রায় আড়াই কোটি টাকারও বেশি দিয়েছিলেন রোনালদো। লাস ভেগাসের নাইটক্লাবে দু’জনের ছবিও প্রকাশ্যে এসেছে।

জুভেন্টাস তারকা রোনালদো নাকি তখন স্বীকারও করেছিলেন যে, ক্যাথরিন সম্মত হওয়ার পরই শারীরিক ভাবে ঘনিষ্ঠ হয়েছিলেন। মার্কিন তরুণী ক্যাথরিনের আইনজীবি এমনই দাবি করেছেন।

জার্মান পত্রিকাকে অভিযোগকারী জানিয়েছেন, ভয় এবং পরিবারের নিরাপত্তার খাতিরে তিনি মুখ বন্ধ রাখতে রাজি হয়েছিলেন। তাঁর এও মনে হয়েছিল যে রোনাল্ডোর মতো মহাতারকা ফুটবলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিনি কখনও সুবিচার পাবেন না। যদিও সেই ঘটনার দুঃসহ স্মৃতি এখনও তাঁকে তাড়া করে। আর এতদিন পরে তাঁর মনে হচ্ছে, রোনাল্ডোর বিরুদ্ধে লড়াই করার মতো মনের জোর তিনি অর্জন করেছেন।

এ ধরণে অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে ইনস্টাগ্রামে সমর্থকদের উদ্দেশে সিআর সেভেন বলেন, ‘এটা ফেক নিউজ। মানুষ বিখ্যাত হতে চান, শিরোনামে আসতে চান। আর সে জন্যেই আমার নাম ব্যবহার করা হচ্ছে। লোকেরা আমার নাম নিয়ে নিজেদের প্রচার চালাচ্ছে। কিন্তু এসব আমাদের সামলাতেই হয়, এসব নিয়েও আমি সুখী।

সংবাদটি 78 বার পঠিত
advertise