|

সমুদ্রের পাড়ে যাওয়া নিশ্চিত হলো বাংলাদেশের

সুরমা ভিউ।। ২০১৫ সালে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম থেকে যাত্রা শুরু। মালয়েশিয়ার বিপক্ষে হার দিয়ে টুর্ণামেন্ট শুরু করা বাংলাদেশ দল ফাইনালে পরাজিত হয় মালয়েশিয়ার কাছে ৩-২ গোলে। প্রথমার্ধে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে দ্বিতীয়ার্ধে ২-২ গোলে ড্র করে বাংলাদেশ। শেষ বাঁশির দিকে গড়াচ্ছিল ম্যাচ। এমন সময়েই কিনা গোল হজম করে বসে বাংলাদেশ। স্বপ্ন ভঙ্গের দু:সহ বেদনা নিয়ে অনেক দিন যাপিত করেছেন ফুটবলাররা।

পরের আসরে বাংলাদেশের দুটি দল অংশ নেয়। জাতীয় দলের পাশাপাশি অলিম্পিক দল। ‘এ’ গ্রুপ থেকে জাতীয় দল সেমিফাইনালে উঠে। শ্রীলঙ্কাকে ৪-২ গোলে পরাজিত করে শুরু করে আসর। কিন্তু বাহরাইন অলিম্পিক দলের কাছে হেরে টানা দ্বিতীয়বার খেলা হয়নি ফাইনাল।

পরের বছর আর অনুষ্ঠিত হয়নি এই আসর। এক বছর বিরতি দিয়ে গত ১ অক্টোবর থেকে মাঠে গড়িয়েছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের পঞ্চম আসর। ছয় জাতির এই আসরে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশ। উদ্বোধনী ম্যাচে লাওসের বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পায় বাংলাদেশ। ঘরের ছেলে বিপলুর গোলে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম মাতিয়ে রাখেন ফুটবলাররা। দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ফিলিপাইন আগামি ৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি।

ঐ ম্যাচে মাঠে নামার আগেই একটি সুখবর পেল বাংলাদেশ। আসরের তৃতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হওয়া ফিলিপাইন ও লাওসের মধ্যেকার ম্যাচে ২-০ গোলে জয় পেয়েছে ফিলিপাইন। এই জয়ে ফিলিপাইন এক ম্যাচ হাতে রেখে নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল। সেই সাথে স্বাগতিক বাংলাদশকে তুলে নিয়েছে সেরা চারে।

ফিলিপাইনের হয়ে দুটি গোল করেন জভিন এবং গায়োস। গ্রুপে দুই ম্যাচে পরাজিত হয়ে লাওসের অপেক্ষা এখন দেশের বিমানের।

সংবাদটি 146 বার পঠিত
advertise