|

যেসব খাবার ফ্রিজে রাখা ঠিক নয়

খাবার ভালো রাখতে আমরা ফ্রিজ ব্যবহার করে থাকি। দীর্ঘদিন খাবার সংরক্ষণেও কাজে লাগে ফ্রিজ। কিন্তু ভালো রাখতে গিয়ে সব ধরনের খাবার ফ্রিজে রাখা ঠিক না। কারণ কিছু খাবার রয়েছে যা ফ্রিজে রাখলে স্বাদ, পুষ্টি ও গন্ধ নষ্ট হয়ে যায়। অনেক ক্ষেত্রে জন্ম নেয় ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। তাই ফ্রিজে খাবার আগে দেখে নিন কোন খাবারগুলো ফ্রিজে রাখবেন না:

* যেকোনও লেবু জাতীয় ফলে অ্যাসিডের পরিমাণ খুব বেশি থাকে৷ অতিরিক্ত ঠান্ডায় সেগুলো খারাপ হয়ে বিষাক্ত হয়ে উঠতে পারে ৷ ঠান্ডায় লেবুর খোসাও শুকিয়ে যায়। একারণে কমলা, লেবু এসব ফল ফ্রিজে রাখা ঠিক নয়।

* অনেকে টমেটো কিনে ফ্রিজে রেখে দেন। এতে টমেটো নিস্তেজ ও ময়দার তালের মতো তুলতুলে হয়ে যায়। একটা খোলা কনটেইনারে টমেটো ভরে জানালার পাশে রাখতে পারেন। এতে টমেটো সতেজ ও টুসটুসে থাকবে।

* পাকার জন্য পেঁপে ফ্রিজে রাখলে তা পাকতে আরও দেরি হবে৷ বরং বাইরে রাখলে এটি তাড়াতাড়ি পেকে যাবে।

* কলা যেহেতু গরম তাপমাত্রায় ফলে তাই গরমেই এটি ভাল থাকে । স্বাভাবিক তাপমাত্রায় থাকলে পাকেও তাড়াতাড়ি৷ আর ফ্রিজে কলা রাখলে পাকতে দেরি হয়। সেই সঙ্গে কলার কোষের গঠনও নষ্ট হয়ে সেটি বিষাক্ত হতে পারে।

* আলু যে ফ্রিজে রাখতে নেই—এ কথা অনেকেরই জানা। ফ্রিজে রাখলে আলুর শর্করার গুণাগুণ নষ্ট হয়। আলুতে যে মিষ্টি ভাব থাকে, ফ্রিজের হিমাগার তা শুষে নেয়। এতে আলুর স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। ফ্রিজে রাখার চেয়ে খোলা ঝুড়িতে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ভালো থাকে আলু।

* অতিরিক্ত ঠান্ডায় শশার খোসা নষ্ট হয়ে যায়৷ শশা অতিরিক্ত গরমে রাখা যেমন ঠিক নয় তেমনি ফ্রিজে রাখাও উচিত নয়৷ আলো নেই, ঠান্ডা এরকম কোনও জায়গায় শশা রাখা উচিত ৷ এতে অন্তত ১ সপ্তাহ এটি তাজা থাকবে।

* ফ্রিজে পেঁয়াজ রাখলে নরম হয়ে নষ্ট হতে পারে। যদি রাখতেই হয়, ব্যাগে ভরে সবজির ড্রয়ারে রাখতে পারেন। তা না হলে ফ্রিজের আর্দ্রতায় পেঁয়াজ ভালো থাকবে না।

* মধুর মধ্যে থাকা সুগার ঠান্ডা হাওয়ায় কেলাসিত হয়ে যায়, যা মধুর স্বাদ ও গুণাগুণ একদম কমিয়ে দেয়। তাই মধু ফ্রিজের বাইরে রাখাই উচিত।

* ফ্রিজে রাখলে রসুন খুব তাড়াতাড়ি অঙ্কুরিত হয়ে যায়। এমনকি রসুন অপেক্ষাকৃত নরম হয়ে যায়। তবে রসুন বেটে বা ব্লেন্ড করে রাখতে পারেন।

* পাউরুটির নিজস্ব আর্দ্রতা রয়েছে। ফ্রিজে রাখলে পাউরুটি আর্দ্রতা হারাতে শুরু করে। শক্ত হয়ে যায়।

* বিশেষজ্ঞদের মতে, ফ্রিজে রাখলে তরমুজের পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়৷ তরমুজ তাই যতক্ষণ না কাটা হচ্ছে ততক্ষণ ফ্রিজের বাইরে রাখাই ভাল৷

* বায়ু চলাচল করতে পারে না—এমন কনটেইনারে কফি রাখা উচিত। ফ্রিজে রাখলে কফি বিন বা পাউডারের আর্দ্রতায় নষ্ট হয়ে যায়। এর গুণাগুণ নষ্ট হয়ে যায়। কফির গন্ধ চলে যায়। এর বদলে একধরনের দুর্গন্ধ তৈরি হয়।

* স্বাভাবিক তাপমাত্রায় আপেল মিষ্টি আর রসাল থাকে। ফ্রিজে রাখলে পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়। এ ছাড়া বাইরের আবরণ শুষ্ক হয়ে যায়। আপেলের রসাল ভাব থাকে না।

* ফ্রিজে রাখলে নাশপাতি নরম হয়ে মজে যেতে পারে। যা খেলে পেটের সমস্যাও দেখা দিতে পারে। এ কারণে এটি স্বাভাবিক তাপমাত্রাতেই রাখুন।

সংবাদটি 44 বার পঠিত
advertise