|

নগরীর জিন্দাবাজার থেকে মানব পাচারকারীর দুই সদস্য আটক

সুরমা ভিউ।।  সিলেট নগরী থেকে ৫৪টি পাসপোর্টসহ মানব পাচারকারী চক্রের দুই সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯ (র‍্যাব)।

বুধবার (৫ ডিসেম্বর) নগরীর জিন্দাবাজারস্থ কানিজ প্লাজা মার্কেট থেকে তাগের আটক করা হয় বলে জানান র‍্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) মো. মনিরুজ্জামান।

তিনি জানান, জিন্দাবাজার এলাকায় কানিজ প্লাজা মার্কেটের নিচতলায় তাজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস অফিস থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছে থাকা ৫৪টি পাসপোর্ট, নগদ অর্থ, ল্যাপটপ, মোবাইল, সিমকার্ড ও বিভিন্ন ব্যাংকের চেকসহ বিভিন্ন দেশের মুদ্রা জব্দ করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, জেলার মোগলাবাজার উপজেলার কদমতলী গ্রামের মো. সাজিদুর রহমানের পুত্র মো. মিজানুর রহমান (২৭) ও গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ি গ্রামের জলিল আহমেদের পুত্র মো. জয়নাল আবেদীন তোফায়েল (২৭)।

র‍্যাব সূত্রে জানা যায়, তাজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরসের স্বত্বাধিকারী আব্দুল গণি হাছান (৪৪) বিভিন্ন মাধ্যমে ইউরোপে যেতে ইচ্ছুক এমন আগ্রহী ব্যক্তিদের যোগাড় করে তাদের কাছ থেকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করে তা কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে মানব পাচারকারী চক্রের আরেক সদস্য এম শফিকুল ইসলামের (৩৪) কাছে পাঠায়।

পরে শফিকুল ইসলাম সেসব পাসপোর্ট থেকে কৌশলে ইন্দোনেশিয়ান পাসপোর্ট তৈরি করে তাতে বিভিন্ন দেশের ভিসা লাগিয়ে আবার তাজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস এজেন্সির কাছে পাঠায়। পরে সে প্রতিষ্ঠান নগরীর সুরমা টাওয়ারের সোমা এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে টিকেটের ব্যবস্থা করে। টিকেট পাবার পর তাজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরেস অবৈধভাবে বিদেশ গমনকারীদের দেশ-বিদেশের বিভিন্ন এয়ারপোর্টে ইমিগ্রেশন পুলিশের ঝামেলা এড়াতে বিভিন্ন ধরণের কৌশল শিখায়।

র‍্যাব আরো জানায়, তাজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরেস ৩ মাসের ভ্রমণ ভিসা পেয়ে সংশিস্ট অন্যান্য কাগজপত্র আলাদা আলাদা খামে ভরে বিদেশ গমনকারীদের ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরে পরবর্তীতে গ্রীস ও আজারবাইজানে প্রেরণ করে। মানব পাচারকারী দলের সদস্যরা বিদেশগামীদেরকে গ্রীসে প্রেরণের ক্ষেত্রে তুরস্ক ও আজারবাইজানকে ট্রানজিট পয়েন্ট হিসেবে ব্যবহার করে। ইন্দোনেশিয়ান পাসপোর্টের মাধ্যমে তুরস্ক ও আজারবাইজানে ভ্রমণ সহজ হওয়ায় মানবপাচারকারী চক্রের সদস্যরা অবৈধ ইন্দোনেশিয়ান পাসপোর্ট ব্যবহার করে বলেও জানায় র‍্যাব।

পরে তারা আজারবাইজানে পৌঁছানোর পর বিভিন্ন দালাল চক্র আজারবাইজানের এয়ারপোর্ট থেকে তাদের রিসিভ করে পূর্বে নির্ধারিত হোটেলে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে সড়ক পথে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে অবৈধ ভাবে গ্রীসসহ ইউরোপিয় বিভিন্ন দেশে অবৈধভাবে প্রবেশ করে।

আটককৃতদের সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানায় র‍্যাব।

সংবাদটি 766 বার পঠিত
advertise