দোয়ারায় বছরের অর্ধেক সময় জলাবদ্ধতায় থাকে আলীপুর সরকারি প্রাঃ বিদ্যাঃ মাঠ 

এনামুল কবির (মুন্না)দোয়ারাবাজার প্রতিনিধিঃ

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রাম আলীপুরে অবস্থিত আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।
এই বিদ্যালয়টি-ই আলীপুরসহ আশপাশের গ্রামের সাধারণ মানুষের শিশু সন্তানের প্রাথমিক শিক্ষার একমাত্র ভরসা। ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বর্তমানে ৩ শোর বেশি শিক্ষার্থী পাঠ গ্রহণ করছে এবং ৫ জন শিক্ষক রয়েছে। অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারও সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছে আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।
প্রত্যন্ত এলাকার প্রাচীনতম এই বিদ্যালয়টি থেকে এবার পিএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকৃত ৪৪ জন পরীক্ষার্থীদের সবাই ৩জন ট্যালেন্ট পুলে বৃত্তিসহ শতভাগ কৃতকার্য হয়েছে। আলীপুর রেজিস্টার বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২০১৪ সালে সরকারিকরণ করা হয়।
প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে উত্তরোত্তর সাফল্য অর্জন করলেও প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ ঢালু হওয়ায় জলাবদ্ধতার দরুন বছরের অর্ধেক সময় খেলাধূলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।
শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া বিনোদনের একমাত্র খেলার মাঠটি ভরাটকরণের দাবি দীর্ঘদিনের।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ সমতল থেকে যথেষ্ট ঢালু হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতার দরুণ খেলার মাঠ ব্যবহারের অনুপোযোগী হয়ে বৃহৎ পুকুরের আকার ধারণ করার ফলে শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া বিনোদনের মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটে।
বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, বছরের অর্ধেক সময় শুকনো, অর্ধেক সময় জলাবদ্ধতায় থাকে আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটিসহ এলাকাবাসী এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং উপজেলা চেয়ারম্যানকে একাধিক বার অবহিত করলেও শুধুমাত্র আশ্বাসেই সীমাবদ্ধ এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি আজোবধি আলোর মুখ দেখেনি।
এব্যাপারে আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী জাকিয়াতুর রহমান সাবেরা বলেন, ‘বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাট না হওয়ায় বছরের অর্ধেক সময় আমরা খেলাধুলা করতে পারছিনা। সারা বছর যাতে খেলার মাঠ ব্যবহার করতে পারি সেজন্য দ্রুত মাঠ ভরাটের দাবি জানাচ্ছি।’
অভিভাবক আব্দুর রহিম বলেন, ‘সবসময়ই মাঠ ভরাটের দাবি জানিয়ে আসছি। আমাদের সন্তানদের ক্রীড়া বিনোদনের স্বার্থে এই মাঠটি দ্রুত ভরাট করা হোক।’ প্রধান শিক্ষক রঞ্জিত দেব বলেন, ‘পূর্বেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করেছি, আবারও অবহিত করবো। আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাটকরণ জরুরী হয়ে দাড়িয়েছে।’
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি বজলুর রহমান মামুন বলেন, ‘বিগত বছর আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক বজলুর রহমানের বিদায় অনুষ্ঠানে সুরমা ইউপি চেয়ারম্যান খন্দকার মামুনূর রশীদ এবং দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী বীরপ্রতীক মহোদয় এসেছিলেন। এসময় উনাদের নিকট এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মাঠ ভরাটের দাবি জানিয়েছিলাম।
উনারা মাঠ দেখে গেছেন এবং আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয় সরাসরি জনসম্মুখে মাঠ ভরাটের আশ্বাসও দিয়েছিলেন। কিন্তু দীর্ঘ দিন যাবৎ আমাদের প্রয়োজনীয় এই দাবিটি এখনো আশ্বাসেই রয়ে গেছে, বাস্তবায়ন হয়নি। আমি আবারও বিদ্যালয়টির মাঠ ভরাটের জোর দাবি জানাচ্ছি।
এ প্রসঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার মামুনূর রশীদ সুরমাভিউ কে  বলেন, ‘ আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাটের বিষয়ে এলাকাবাসী দাবি জানিয়েছেন। এ বিষয়ে আমি অবগত আছি। এ ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট চাহিদা পাঠানো হবে।
এব্যাপারে দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী বীরপ্রতীককে মোবাইলে কল করলে তিনি কল রিসিভ না করায় উনার বক্তব্য নেওয়া যায়নি