|

পুলিশের উপর হামলাকারীদের কোনো ছাড় নয়: ওসি বিশ্বনাথ

মো. আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ থেকে :: সিলেটের বিশ্বনাথে পুলিশের উপর হামলাকারীদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম। তিনি বলেন, মনুকোপা ও বৈরাগী বাজারে পুলিশের উপর হামলার ঘটনা ষ্পর্শকাতর। এই হামলার ঘটনাগুলো বিচ্ছিন কোনো ঘটনা নয়। পুলিশের ক্ষেত্রে সব জায়গায়ই এমনটি হয়। এই দুটি হামলার ঘটনাকে খুবই গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে এর সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসতে আমরা কাজ করছি। এ জন্যে আপনাদেরও (সাংবাদিকদের) সর্বাত্মক সহযোগিতা চাই। রবিবার রাতে এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় গেল বছরের ২৭ ডিসেম্বর উপজেলার রামপাশা বাজারে পুলিশের উপর হামলা করে বিএনপি নেতা বশির আহমদকে কেড়ে নেয়ার ঘটনাটি সম্পর্কে তার দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, অইদিন রামপাশাতে পুলিশের উপর কোনো হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে আমাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। তারপরও বিষয়টি আমলে নিয়েছি। তদন্ত করে দেখব। এ বিষয়ে কোনো পুলিশ অফিসার বা ক্ষতিগ্রস্থ পক্ষ অভিযোগ করেনি। যদি কেউ অভিযোগ করে, তাহলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গেল বছরের ১৮ নভেম্বর রবিবার দুপুরে উপজেলা অলংকারী ইউনিয়নের মনুকোপা গ্রামের আবদুর রউফের বাড়িতে এক গৃহবধু ও তার সন্তানকে তালাবদ্ধ করে নির্যাতন করা হচ্ছে-এমন অভিযোগ পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করতে গিয়ে হামলার শিকার হন থানার এসআই সুলতান উদ্দিন, এএসআই পরিমল চন্দ্র শীল, কনস্টেবল রাজুসহ বেশ কয়েকজন। ২৭ ডিসেম্বর বৃহষ্পতিবার বিকেলে উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের রামপাশা বাজারে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গণফোরাম মনোনিত ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সমর্থিত প্রার্থী মোকাব্বির খানের সূর্য প্রতিকের সমর্থনে অনুষ্ঠিত পথসভা থেকে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক বশির আহমদকে আটক করে বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলার মুখে পড়ে পুলিশ। তারা পুলিশের কাছ থেকে বশির আহমদকে কেড়ে নিয়ে যায়। অনেক প্রত্যক্ষদর্শী ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেন। সর্বশেষ, এ বছরের শুরুতেই গত ১০ জানুয়ারী বৃহষ্পতিবার রাতে মাত্র ৩জন কনস্টেবল নিয়ে সাদাপোষাকে উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের বৈরাগী বাজারে কুখ্যাত মাদক কারবারী সুহেল মিয়াকে একটি মামলায় গ্রেফতার করতে গিয়ে তার নেতৃত্বেই মাদকসেবীদের হামলার শিকার হন থানার এসআই সবুজ কুমার নাইডুসহ চার পুলিশ সদস্যই।
এরমধ্যে মনুকোপায় পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় এসআই সুলতান উদ্দিন বাদী হয়ে ২৭ জনকে আসামী করে মামলা দেন। অপরদিকে, বৈরাগীবাজারে হামলার ঘটনায় ১৫জনকে আসামী করে মামলা দেন এসআই সবুজ কুমার নাইডু। তবে, রামপাশা বাজারে হামলার ঘটনায় কোনো মামলা দেয়নি পুলিশ। তারা সেখানে কোনো হামলার ঘটনা ঘটেনি বলে দাবী করে।

সংবাদটি 71 বার পঠিত
advertise