সিলেটে কোটা আন্দোলনকারীদের ইফতার ও পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক।।  কোটা সংস্কার আন্দোলনের মাধ্যমে গড়ে উঠা সংগঠন ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ সিলেট বিভাগীয় কমিটির পথশিশুদের সঙ্গে ইফতার মাহফিল ও পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার নগরের নাইওরপুলস্থ একটি হোটেলে সিলেট বিভাগীয় কমিটির সহকারী সমন্বয়ক নাজমুস সাকিবের সভাপতিত্বে ও নোমান হোসেন খন্দকারে সঞ্চালনায় অনুষ্টিত এ সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিলেট বিভাগীয় প্রধান সমন্বয়ক ও শাবিপ্রবির আহবায়ক মো. নাসির উদ্দিন। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহবায়ক রাশেদ খাঁন, মোহাম্মদ উল্লাহ মধু, এপি এম সুহেল, আশিক ও ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আক্তার হোসেন।
প্রধান অতিথি হাসান আল মামুন বলেন, ‘সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন হিসেবে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে আমরা থাকতে চাই। সকল ন্যায় ও যৌক্তিক আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা থাকবে নৈতিকতার ভিত্তিতে এটাই আমাদের প্রত্যাশা থাকবে। শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার পাশাপাশি মানুষের অধিকার নিয়ে কাজ করবে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। সিলেট আন্দোলনে যে সকল সহযোদ্ধা আমাদের পাশে ছিলেন ভবিষ্যতেও তারা পাশে থাকবেন বলে আশা করেন তিনি।
প্রধান বক্তা রাশেদ খান বলেন, তরুণদের নিয়ে আমাদের যে অগ্রযাত্রা শুরু হয়েছে, তা অব্যাহত থাকবে। আমরা বিশ্বাস করি, তরুণদের হাত ধরে একটি সুন্দর বাংলাদেশ নির্মিত হবে। সুন্দর বাংলাদেশ বির্নিমানে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।
তিনি বলেন, আজকে তরুণেরাই আমাদের শক্তি। তরুণসমাজের যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে, যে সাড়া আমরা পাচ্ছি, যে সমর্থন আপনারা আমাদের দিচ্ছেন, তা আমাদের শক্তি জোগাচ্ছে। এই শক্তিকে পুজি করে, আপনাদের সঙ্গে নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে সিলেট কমিটির জন্য শুভকামনা থাকলো। আশা করি কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে তাল মিলিয়ে সিলেট কমিটি সামনের সকল কর্মসুচি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগীয় সহকারী সমন্বয়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন সুজন, এসএম মনসুর, সাইফুল ইসলাম, এফএ ফুয়াদ, মনসুর আহমদ, রিপন মাহমুদ, কামরুজ্জামান, স্বন্দীপ রয়, ইফতেখার মো. নাবিল চৌধুরী প্রমূখ। ইফতার মাহফিল ও পরিচিতি সভায় সিলেট বিভাগের চার জেলার শতাধিক সদস্য অংশগ্রহন করেন।