সিনিয়রদের আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত ছাত্রদলের

শনিবার (১৬ জুন) থেকে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আবারও অবস্থান কর্মসূচির কথা থাকলেও সিনিয়র নেতাদের আশ্বাসে তা স্থগিত করেছেন ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির একাংশের নেতারা।
গত মঙ্গলবার (১১ জুন) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দিনব্যাপী বিক্ষোভ করে আলোচনায় আসেন তারা।

জানা যায়, বয়সের সীমা না রাখা, স্বল্পমেয়াদী কমিটি গঠনসহ তিন দফা প্রস্তাবনার ভিত্তিতে ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের দাবিতে গত মঙ্গলবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সিনিয়র নেতা রিজভীকে আটকে রেখে প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন পদবঞ্চিত নেতারা। রাতে দাবি পূরণে সাবেক ছাত্রনেতার আশ্বাসে সাময়িকভাবে আন্দোলন স্থগিত করা হয়।

নিজেদের অবস্থান তুলে ধরতে শুক্রবার (১৪ জুন) রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর সাথে সাক্ষাৎ করেন আন্দোলনকারীরা।

দলের সিনিয়র নেতারা বিষয়টি নিয়ে শনিবার স্থায়ী কমিটির বৈঠকে আলোচনার পাশাপাশি তারেক রহমানের সাথেও কথা বলবেন বলে আন্দোলনকারীদের আশ্বস্ত করেন। সিনিয়রদের আশ্বাস পেয়ে আপাতত আন্দোলনে যাচ্ছেন না বলে মিডিয়াকে নিশ্চিত করেন তারা।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুন ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে দেওয়ার পাশাপাশি কাউন্সিলের মাধ্যমে সংগঠনটির নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। আর কাউন্সিলে প্রার্থী হতে ২০০০ সাল থেকে পরবর্তী যেকোনো বছরে এসএসসি/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং অবশ্যই বাংলাদেশের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী হওয়াসহ তিনটি শর্ত নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। এ নিয়েই ক্ষেপে যায় ‘বয়স্করা’। পদ পেতে শুরু করেন আন্দোলন।