জগন্নাথপুর পৌর শহরে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিংয়ে জন ভোগান্তি ॥ অপসারণে প্রশাসনের অভিযান

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি।।  সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর শহরের ভেতরে প্রধান সড়কে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিংয়ের কারণে জন ভোগান্তি বেড়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এমন অবস্থা চলছে। এসব গাড়ি অপসারণে অভিযানে নেমেছে প্রশাসন।

১৫ জুন শনিবার দুপুরে সরজমিনে দেখা যায়, জগন্নাথপুর পৌর পয়েন্ট, রাণীগঞ্জ রোড, খাদ্য গোদাম সড়ক, টিএন্ডটি রোড, থানা রোড, মাদ্রাসা পয়েন্ট, পশ্চিম বাজার, স্ল্ইুচগেইট, সিলেটী বাস স্ট্যান্ড, সুনামগঞ্জী বাস স্ট্যান্ড, হাসপাতাল পয়েন্ট, কেশবপুর বাজার, ভবের বাজার সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানের প্রধান সড়ক গুলোর দুই পাশে বিভিন্ন ধরণের গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয়েছে। এসব পার্কিং করা গাড়ির কারণে পথচারীদের পায়ে হেঁটে চলাচলে ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। সেই সাথে পৌর শহরের ভেতরে দ্রুত গতিতে গাড়ি চলাচল করায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক পারপার হতে হয় পথচারীদের। এতে প্রায়ই ঘটে থাকে সড়ক দুর্ঘটনা। স্থানীয় সিলেটী ও সুনামগঞ্জী বাস স্ট্যান্ড এলাকার সড়ক মিনিবাসের দখলে থাকে। কমবেশি সারাক্ষন সড়কের দুই পাশে মিনিবাস পার্কিং করে রাখায় অনাকাঙ্খিত যানজট লেগে থাকে। বাকি সকল স্থানের সড়ক থাকে ইজিবাইক (টমটম), অটোরিকশা (সিএনজি), লেগুনা, এইচ পাওয়ার, মালবাহী ট্রাক, পিকআপ, রিকশা, ঠেলা গাড়ি সহ বিভিন্ন গাড়ির দখলে। এসব গাড়ির মধ্যে অধিকাংশ গাড়ির নেই নির্দিষ্ট স্ট্যান্ড। যে কারণে যেখানে-সেখানে মনগড়াভাবে গাড়ি পার্কিং করে যানজটের সৃষ্টি করছে। তারা মানছে না ট্রাফিক আইন। যানজট পরিস্থিতি মোকাবেলায় ট্রাফিক পুলিশ নিয়োজিত থাকলেও প্রতিনিয়ত হিমশিম খাচ্ছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেপরোয়া হচ্ছে ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক (টমটম)। এছাড়া এসব টমটমের ব্যাটারি চার্জ করাতে গিয়ে অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহারের হিড়িক পড়েছে। এতে বেড়েছে বিদ্যুৎ চুরি।
এদিকে-১৫ জুন শনিবার বিকেল ৬ টার দিকে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুমের নেতৃত্বে পৌর শহরের পার্কিং করা যানবাহন অপসারণে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো হয়। এ সময় অভিযানের খবর ছড়িয়ে পড়লে দ্রুত সড়ক ফাকা হয়ে যায়। সড়কে থাকা গাড়ি ও ছোট ছোট ফুটপাতের দোকান ও অন্যান্য মালামাল মুহুর্তেই সরিয়ে নেয়া হয়। অভিযানে সহযোগিতা করেন জগন্নাথপুর থানার এসআই কবির উদ্দিন, ট্রাফিক পুলিশের এসআই নসু মিয়া ও জগন্নাথপুর উপজেলা উপ-সহকারি কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা শাহাব উদ্দিন। অভিযানে সড়ক ফাকা হওয়ায় জনমনে স্বস্তি ফিরে আসে। তবে অভিযান শেষ হওয়ার কিছু সময় পরে আবারো পূর্বের চিত্র ফিরে আসতে দেখা যায়। এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম বলেন, যানজট অপসারণে নিয়মিত অভিযান চলবে।