যেভাবে সেমিফাইনালে যেতে পারে টাইগাররা

বিশ্বকাপের শুরুটা দারুণ করেছিল টাইগাররা। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের কাছে জিততে জিততে হার ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বৃষ্টিতে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হওয়ায় সেমিফাইনালের পথটা বাংলাদেশের জন্য এখন একটু কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে শুক্রবার (২১ জুন) শ্রীলঙ্কার কাছে আসরের টপ ফেভারিট স্বাগতিক ইংল্যান্ড হেরে যায়। যার ফলে শ্রীলঙ্কার এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলে আসে উলটপালট আর তাই বাংলাদেশের জন্য তৈরি হয় নতুন সম্ভাবনা।

বিশ্বকাপে মাশরাফিদের এখনও তিন ম্যাচ বাকি রয়েছে। এই তিন ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তান। তিন ম্যাচের সবকটি ম্যাচই জিততে হবে। আর যদি টাইগাররা ২টি ম্যাচে জিতে তাহলে সমীকরণটা হবে খুবই জটিল। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের পয়েন্ট দাঁড়াবে ৯। আর বাকি সবগুলা ম্যাচ জিতে তাহলে পয়েন্ট হবে ১১। তখন সেমিফাইনালে খেলাটা প্রায় নিশ্চিত হয়ে যাবে বাংলাদেশের। এদিকে, বাংলাদেশের সেমিফাইনালের বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা।

বিশ্বকাপের ৬ ম্যাচ খেলে ইংল্যান্ডের পয়েন্ট ৮ কিন্তু ইংল্যান্ডের বাকি ম্যাচ গুলোতে প্রতিপক্ষ হলো অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও ভারত। স্বাগতিকরা যদি এই তিন ম্যাচই হেরে যায় তাহলে তাদের পয়েন্ট ৮ হবে। আর টাইগাররা দুই ম্যাচ জিতলেই পয়েন্ট হবে ৯। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকছে।

বাংলাদেশের সেমির বাধা হয়ে দাঁড়ানো আরেক প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপের ৫ ম্যাচে খেলে পয়েন্ট ৯ নিয়ে বাংলাদেশের চেয়ে অবশ্য এগিয়ে আছে কিন্তু তাদের বাকি চার ম্যাচে মুখোমুখি হতে হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া বিপক্ষে সেক্ষেত্রে ২ ম্যাচে জয় পেলেই তাদের সেমিতে খেলা নিশ্চিত হয়ে যাবে। আর যদি সবগুলো ম্যাচে হেরে যায় তাহলে বাংলাদেশের সামনে সুযোগ থাকবে তাদের টপকে যাওয়ার।

টাইগারদের সেমির স্বপ্নের আরেক বাধা হাথুরুর লঙ্কা। বাকি ৩ ম্যাচের মধ্য যদি লঙ্কানরা দুই ম্যাচ জিতে যায়, তাহলে তাদের পয়েন্ট হবে ১০। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে যাবে শ্রীলঙ্কা। শ্রীলঙ্কা এক ম্যাচ জিতলে এবং বাকি দুই ম্যাচ হারলেই কেবল তাদেরকে পেছনে ফেলার সুযোগ থাকবে বাংলাদেশের সামনে।