শ্রীধরপাশায় মুক্তিযোদ্ধার জায়গা জোরদখল- আদালতে মামলা দায়ের

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি।।   জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের শ্রীধরপাশা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আরশ আলীর জায়গা জোর দখল করায় ফয়ছল গংদের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জের সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আরশ আলীর স্ত্রী ফেনী বেগম ।

স্বত্ব মোকদ্দমা নং- ১২/২০১৯ ইং ।

জানা যায়,১৯৯৯-২০০০ ইং সনে সুনামগঞ্জের তৎকালীন জেলা প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা আরশ আলীকে দুই দাগে মোট ৫৫ শতক জায়গা প্রদান করেন ।

যাহা ২৯/০৮/২০০১ ইং তারিখে দলিল রেজেষ্ট্রি হয় এবং মুক্তিযোদ্ধা আরশ আলী তাহার নামে নামজারি করে ভোগ দখল করে আসছিলেন ।

পরর্বতীতে গত ০৮/০৩/২০০৪ ইং তারিখে বীর মুক্তিযোদ্ধা আরশ আলী মৃত্যুবরন করলে তার তাজ্যবিত্তে তার স্ত্রী, ছেলে মেয়েগন উক্ত ভূমি ৪৪০/০৭-০৮ নামজারী মোকদ্দমামূলে তাদের নামে ৫৬ নং খতিয়ানে বীর মুক্তিযোদ্বার উত্তরাধিকারী খতিয়ান খোলা হয় ।

প্রায় ১৯ বছর ধরে এই ভুমি তারা ভোগ দখলকার করে থাকেন।

বাদিনী ও তার ছেলেমেয়ে সবাই প্রাবাসে থাকায় আসামী ফয়ছল মিয়া পিতা- মৃত আব্দুল গফুর, আব্দুল গনি পিতা- মৃত আব্দুল হাসীমগংরা গত জানুয়ারী ২০১৯ থেকে বীর মুক্তিযোদ্বা আরশ আলীর ৫৫ শতক জায়গা জোর দখল করে মাটি ভরাট ও ঘর নির্মাণের পায়তার করেছে বলে বাদিনী জানতে পারেন ।

পরর্বতীতে ফেনী বেগম আসামীদের বিরুদ্ধে এই মোকদ্দমা দায়ের করেন ।

এই ব্যাপারে ফেনী বেগম জানান, এলাকায় ফয়ছল গংরা শুধু ভূমিখেকো নাহ তারা এলকার চিহ্নীত সন্ত্রাসী ।

এলাকার কোন মানুষ এই ফয়ছল গংদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের জন্য নিরাপদে বাস করতে পারতেছে নাহ ।ফয়ছল গংরা শুধু বীর মুক্তিযোদ্ধার জায়গা নাহ এলাকার আরও অনেক নিরীহ মানুষের জায়গা জোর দখল করে আছে ।

তিনি এই ব্যাপারে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের কাছে লিখিত আবেদন করবেন বলে জানান এবং তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন ।

তিনি দেশের জন্য লড়াই করা একজন মুক্তিযোদ্ধার জায়খা দখলমুক্ত করার জন্য প্রশাসনের কাছে আকুল আবেদন জানান ।