তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষাকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছে সরকার – মুহিবুর রহমান মানিক এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক।।  সরকারি প্রতিষ্ঠান ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, মুহিবুর রহমান মানিক এমপি বলেছেন, সবার জন্য যোগপোযোগী শিক্ষা নিশ্চিত করতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সে লক্ষে সরকার নতুন-নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা ও সকল প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়েছে। তৃণমুল পর্যায়ের সকল শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের জন্য বিভিন্ন স্কুলকে কলেজে রূপান্তরিত করা হয়েছে। উচ্চ শিক্ষা মানুষের দোরগোড়ায় পৌছে দিতে সারা দেশের ন্যায় ছাতক-দোয়রায় ৪টি ডিগ্রি ও ২২টি স্কুল এন্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এসব কলেজের সবগুলোই আওয়ামী সরকারের শাষনামলে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সরকার তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর একটি শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষাকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছে। রোববার সকালে উপজেলা মিলনায়তনে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ও উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ও সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় উপজেলা পর্যায়ে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ এবং উপজেলা পরিষদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাপস শীলের সভাপতিত্বে ও ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর মোস্তফা আহসান হাবিবের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, ছাতক সরকারী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন আহমদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু সাদাত লাহিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপি বেগম, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক চন্দ্র দাস, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ আহমদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনোয়ার রহমান তোতা মিয়া। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা পুলিন রায়। বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি জসিম উদ্দিন, ভাতগাও ইউপি চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন, উত্তর খুরমা ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ, শিক্ষক অজয়কৃষ্ণ পাল, শিক্ষার্থী আনিকা রহমান প্রমুখ। এসময় গোবিন্দগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান, ছাতক সরকারী বহুমুখী মডেল হাইস্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গির আজাদ, অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল আহাদ, আওয়ামীলীগ নেতা আফজাল হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মছব্বির, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সোয়েব আহমদ, প্রধান শিক্ষক আশিকুর রহমান, প্রধান শিক্ষক আবু হেনা, আওয়ামীলীগ নেতা বাবুল রায়, সাব্বির আহমদ, এম রশিদ আহমদ, উপজেলা পরিষদের সিএ জিতেন বর্মনসহ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে উপজেলার ১৫৬ জন শিক্ষার্থীকে ২ হাজার টাকা করে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়। পরে সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় উপজেলা পর্যায়ে ৭১ জন বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি এমপি মুহিবুর রহমান মানিক। এ ছাড়া শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক, শ্রেনী শিক্ষক, আইসিটি শিক্ষক ও স্কাউট শিক্ষকদেরও পুরস্কৃত করা হয়। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সাজ্জাদুর রহমান ও গীতা থেকে পাঠ করেন শিক্ষার্থী প্রশান্ত দাস তুষার।